Menu
 
       
বাংলাদেশ

শেরপুরে হাড় কাঁপানো শীতে জনজীবন বিপর্যস্ত


 
শেরপুরে হাড় কাঁপানো শীতে জনজীবন বিপর্যস্ত  1950 
 

বগুড়ার শেরপুরে হাড় কাঁপানো শীতে জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে। মৌসুমের শুরুতে তেমন শীত অনুভূত না হলেও গত কয়েকদিনের মৃদু শৈত্যপ্রবাহে শীত বাড়ছে। দিনের অর্ধেক সময়জুড়ে কোথাও সূর্য্যরে দেখা মিলছে না। ফলে সাধারণ খেটে খাওয়া মানুষগুলো জড়সড় হয়ে পড়েছেন। তাঁরা সবচেয়ে বেশি সমস্যায় রয়েছেন। সামর্থবানরা ঘরে অবস্থান করতে পারলেও ওইসব গীরব ছিন্নমূল মানুষের পক্ষে তা সম্ভব হয়ে উঠছে না। দু’মুঠো অন্নের জন্য তাঁদের ছুটতে হচ্ছে কাজের সন্ধানে। জীবন ধারণের জন্য প্রচন্ড শীতের সঙ্গে পাল­া দিয়েই চলতে হচ্ছে তাঁদের। শীতের কারণে শহরের ফুটপাত ও হকার্সসহ বিভিন্ন মার্কেটে শীতবস্ত্র বিক্রির হিড়িক পড়েছে। তবে শীতকে পুঁজি করে গার্মেন্ট ব্যবসায়ীরা পোশাকের দামও বাড়িয়ে দিয়েছেন কয়েকগুন। তাই অনেক শীতার্ত মানুষদেরকে খড়কুটোয় আগুন জ্বালিয়ে শীত নিবারণ করতে দেখা গেছে। এছাড়া শীতের তীব্রতা বৃদ্ধি পাওয়ায় চারদিকে শীতজনিত রোগবালাই ছড়িয়ে পড়েছে। শিশু ও বৃদ্ধরা এই শীতজনিত রোগবালাইয়ে আক্রান্ত হচ্ছেন। এদিকে দিন গড়িয়ে রাত পেরোনোর পর ক্রমেই বাড়তে থাকে কুয়াশা। একইসঙ্গে বইতে শুর“ করে হিমেল হাওয়া। কুয়াশার দাপটে সকালে মহাসড়কে যানবাহনগুলো হেড লাইট জ্বালিয়ে চলাচল করছে। দুর্ঘটনা এড়াতে গাড়ীর চালক গতি নিয়ন্ত্রণে এনে ধীরে ধীরে চলতে বাধ্য হচ্ছেন। এতে সময়মত নির্দিষ্ট গন্তব্যে পৌঁছতে পারছেন না। আজগর আলী, বাদশা মিয়া, আব্দুস সাকুরসহ একাধিক যানবাহন চালক এমনটাই জানান। তারা জানান, দিন যত যাচ্ছে কুয়াশার দাপট ততই বাড়ছে। সন্ধ্যার পর সড়ক-মহাসড়ক ধরে উত্তরের জেলা শহরগুলোতে যেতে বেশ সমস্যা হচ্ছে। ফাঁকা স্থানগুলোয় কুয়াশার দাপটে গাড়ি টানাই যায় না। চারদিক থেকে কুয়াশা চেপে আসায় যেন কিছুই চোখে পড়তে চায় না। তখন গাড়ি থামিয়ে গ্লাসে পানি মাড়তে হয়। এরপর যাত্রা শুরু করতে হয় বলে এসব চালকরা জানান। রিকসা চালক বকুল মিয়া জানান, গত কয়েক বছরের মধ্যে এবার শীত বেশি। তাই এবারের শীতে একেবারেই কাহিল হয়ে পড়েছেন। উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আব্দুল কাদের সাংবাদিকদের জানান, শীতের কারণে মানুষের নিউমোনিয়া, সর্দ্দি, জ্বর, কাশি, আমাশয় রোগ হচ্ছে। এসব রোগে মহিলা, শিশু ও বৃদ্ধরা বেশি আক্রান্ত হচ্ছে। তিনি আরও বলেন, এসব রোগে আক্রান্ত হয়ে স্বাভাবিকের চেয়ে একটু বেশি রোগী চিকিৎসা নিতে হাসপাতালে আসছেন। সাধ্যানুযায়ি তাদের চিকিৎসা সেবা দেওয়া হচ্ছে। এছাড়া শীতজনিত রোগের কারণে এই উপজেলায় এখনও কেউ মারা যাননি বলে ওই কর্মকর্তা দাবি করেন।

আল ইমরান
শেরপুর, বগুড়া


71 নিউজ টিভি'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।



71 নিউজ টিভি সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

 

Banner 2